পিকাপ নয়, টহল কাজে কার ব্যবহার করতে চায় পুলিশ

পিকাপ নয়, টহল কাজে কার ব্যবহার করতে চায় পুলিশ

রয়েল ভিউ ডেস্ক :
পিকাপে চড়ে টহলে অনীহা পুলিশের, কার চায় তারা। উন্নয়নশীল কাতারে বাংলাদেশের নাম ওঠায় টহল কাজে পুলিশের কার ব্যবহারের সময় এসেছে বলে মনে করেন বাহিনীটির মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ।
রোববার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে শনাক্তকরণ প্রযুক্তি ও বিজ্ঞাপণ চিত্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালকে উদ্দেশ করে বেনজীর বলেন, ‘আমাদের যে কাজটা করতে হবে, আমাদের পিকাপ থেকে উই ওয়ান্ট টু সুইচ আউট পেট্রল ইন টু কারস। সভ্য দেশে স্যার, পিকাপে কিন্তু কোনো পেট্রল করে না। পেট্রল করে কারে। আমাদের দেশে কী কারণে পিকাপ আসছে পাবলিকলি বলতে চাই না, পরে আপনাকে একসময় বলব।’
জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি (সিডিপি) থেকে জানানো হয়, দ্বিতীয় দফায় ত্রিবার্ষিক পর্যালোচনায়ও স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশের তালিকাভুক্ত হওয়ার শর্ত পূরণ করতে পেরেছে বাংলাদেশ।
উন্নয়নশীল দেশের কাতারে যেতে এখন বাংলাদেশের প্রস্তুতি পর্ব চলবে। এ পর্ব শেষে ২০২৬ সালে উন্নয়নশীল দেশে ওঠার সব প্রক্রিয়া শেষ হবে।
এ প্রসঙ্গ টেনে আইজিপি বলেন, ‘বাংলাদেশ এলডিসি থেকে গ্র্যাজুয়েট করেছে, আমার মনে হয় সময় এসেছে পিকাপের পরিবর্তে পেট্রলে কার ইন্ট্রোডিউস করার। সমস্ত আধুনিক পুলিশ, সভ্য পুলিশ বা অ্যাডভান্স কান্ট্রিগুলো পিকাপ ব্যবহার করে না। এরা সবাই কার ব্যবহার করে।’
এ সময় র‌্যাবের প্রযুক্তি ‘অনসাইটি আইডেন্টিফিকেশন অ্যান্ড ভেরিফিকেশন সিস্টেম’ নিয়েও কথা বলেন বেনজীর আহমেদ। জানান, পুলিশের জন্যও এই ডিভাইসটি ব্যবহার করতে চান তিনি।
পুলিশ প্রধান বলেন, ‘দেশীয়ভাবে করার কারণে এগুলোর দাম কম পড়বে বলে আমি মনে করি। সেক্ষেত্রে সার্ভার ক্যাপাসিটি যদি ভালো থাকে, তাহলে আমি পুলিশ ফোর্সকে বলবো এই ডিভাইসটি ব্যবহার করার জন্য।’
সরকারের অর্থ অপচয় করতে চান না জানিয়ে আইজিপি বলেন, ‘পুলিশের পক্ষ থেকে সেকেন্ড টাইম আবিস্কার করার দরকার নাই। এতে করে পয়সা নষ্ট হবে বেশি। আমি মনে করি যে যদি সার্ভার সাপোর্ট করে তাহলে, এই ডিভাইস আমরা কিনে ব্যবহার করতে চাই।’