বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্য আরেক পৌর মেয়রের

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্য আরেক পৌর মেয়রের

রয়েল ভিউ ডেস্ক :
গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি করার রেশ কাটতে না কাটতেই রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীকে দুইবারের নির্বাচিত মেয়র আব্বাস আলীর এক মিনিট ৫১ সেকেন্ডের বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুর‌্যাল স্থাপন ইসলামের চোখে মহাপাপ; সে কারণে রাজশাহী সিটি গেটে জীবন দিয়ে হলেও বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল বসাতে না দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হওয়া অডিওতে শোনা যাচ্ছে, মেয়র আব্বাস একজনকে বলছেন, ‘সিটি গেট আমার অংশে। একটি ফার্মকে দিয়েছে তারা বিদেশী স্টাইলে সাজিয়ে দিবে; ফুটপাত, সাইকেল লেন টোটাল আমার অংশটা। কিন্তু একটু থেকে গেছি গেটটা নিয়ে। একটু চেঞ্জ করতে হচ্ছে, যে মুর‌্যালটা দিয়েছে বঙ্গবন্ধুর সেটা ইসলামি শরীয়ত মতে সঠিক না। এ জন্য আমি ওটা থুব (রাখবো) না, সব করবো তবে শেষ মাথাতে যেটা, ওটা (মুর‌্যাল)।’

মেয়র আব্বাস আলী বলছেন, ‘আমি দেখতে পাচ্ছি আমাকে যেভাবে বুঝাইছে আমি দেখতে পাচ্ছি যে মুর‌্যালটা ঠিক হবে না দিলে; আমার পাপ হবে; তো কেন দিব, দিব না। আমিতো কানা না, যেভাবে বুঝাইছে তাতে আমার মনে হয়েছে মুর‌্যালটা হলে আমার ভুল করা হবে। এ খবরটা যদি যায় তাহলে আমার রাজনীতির বারোটা বাজবে; এই মুর‌্যাল দিত চেয়ে দিছে না। তাহলে বঙ্গবন্ধুকে খুশি করতে গিয়ে, আল্লাহকে নারাজ করবো নাকি। এ জন্য কিছু করার নাই। মানুষেক সন্তুষ্ট করতে গিয়ে আল্লাহকে অসন্তুষ্ট করা যাবে না।’

কাটাখালি পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী পৌরসভা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক। তিনি জেলা আওয়ামী লীগেরও সদস্য। তবে অডিওটি তার নয় বলে দাবি করেছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘মুর‌্যাল করা যাবে না, মুর‌্যাল করলে পাপ হবে, এ ধরণের কথা আমার সঙ্গে কারও হয়নি। আমাকে বিব্রত করতে ও খারাপ করতে কেউ আমার নামে এমন বক্তব্য ছড়িয়েছে।’

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল সরকার বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটূক্তি করলে তার আওয়ামী লীগ করার অধিকার থাকে না। কাটাখালীর মেয়র বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে যদি কোন কটূক্তি করে থাকে, তার বিরুদ্ধে দলীয় ও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।