বিমানের টয়লেটে সদ্যোজাত শিশু!

বিমানের টয়লেটে সদ্যোজাত শিশু!

রয়েল ভিউ ডেস্ক :
বিমানের ওয়াশরুমে সন্তান জন্ম দিয়ে তাকে টয়লেট বিনে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০ বছরের এক তরুণীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পূর্ব আফ্রিকার দেশ মরিশাসে ঘটেছে এই ঘটনা। উদ্ধার হওয়া শিশুটি ছেলে। বর্তমানে শিশুটি নিরাপদ ও সুস্থ আছে বলে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, গত ১ জানুয়ারি পার্শ্ববর্তী দেশ মাদাগাস্কার থেকে মরিশাসের স্যার সিউসাগুর রামগুলাম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে এয়ার মরিশাসের একটি বিমান।


 অবতরণের কিছুক্ষণের মধ্যে রুটিন কাস্টমস চেকের জন্য বিমানে ওঠেন বিমানবন্দরের কয়েকজন কর্মকর্তা। ওয়াশরুমে যখন এক কর্মকর্তা ঢোকেন, তখনই টয়লেট বিন থেকে কান্নার আওয়াজ পান তিনি। সঙ্গে সঙ্গে বিনের ঢাকনা খুলে রক্তমাখা টয়লেট পেপার এবং ওই শিশুকে দেখতে পান তিনি।

শিশুটির সন্ধান পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ওই ফ্লাইটের সব যাত্রীর বিমানবন্দর ত্যাগে নিষেধ করা হয়। সন্দেহভাজন তরুণী যাত্রীকে সদ্যজাত ওই শিশুটির মা হিসেবে আটকও করা হয়। কিন্তু প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই তরুণী বলেন, তিনি এই শিশুর মা নন।

তারপর তাৎক্ষণিকভাবে বিমানবন্দরে মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হয় তার এবং সেখানে দেখা যায়, শিশুটির মা আসলে ওই তরুণীই। এতক্ষণ মিথ্যা বলছিলেন তিনি।

অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সেই সময় তাকে আটক করা হয়। বিমানবন্দর পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আটকের পর তরুণী ও নবজাতককে হাসপাতালে পাঠানো হয়। মা ও শিশু উভয়ই শারীরিকভাবে সুস্থ আছে। হাসপাতালে ওই নারী পুলিশের নজরদারিতে আছেন।

মাদাগাস্কার থেকে দুই বছরের ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে মরিশাসে এসেছিলেন ওই তরুণী। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিমানবন্দর পুলিশের কর্মকর্তারা।