৬ষ্ঠ উইকেটে ৩৮২ রান  শ্রীলঙ্কার

৬ষ্ঠ উইকেটে ৩৮২ রান  শ্রীলঙ্কার

স্পোর্টস ডেস্ক : প্রথম টেস্টের মতো পাল্লেকেলেতে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনেও দুর্দান্ত বোলিং করেছেন তাসকিন আহমেদ। এই পেসারের দুর্দান্ত ব্রেক-থ্রু ও মিরাজের স্পিনে লঙ্কান শিবিরে আবারও জোড়া আঘাত হেনেছে টাইগাররা। যাতে ৩৮২ রানেই ৬ষ্ঠ উইকেট হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

দ্বিতীয় সেশনের দ্বিতীয় ঘণ্টার শুরুতেই মাত্র পাঁচ বলের ব্যবধানে ফেরেন বিপজ্জনক হয়ে ওঠা নিসাঙ্কা ও শতকের লক্ষ্যে থাকা ফার্নান্ডো। তাসকিনের বলে সরাসরি বোল্ড হওয়ার আগে তিনটি চারের মারে ৩০ রান করেন ৮৪ বল খেলার পাথুম নিসাঙ্কা। পরের ওভারেই মিরাজকে সুইপ খেলতে গিয়ে কাটা পড়েন সকালেই ফিফটি পূরণ করা ওশাদা ফার্নান্ডো। 

২২১ বল মোকাবেলায় ৮টি চারে সেঞ্চুরির লক্ষ্যে থাকা এই ব্যাটসম্যান করেন ৮১ রান। সেইসঙ্গে নিসাঙ্কাকে নিয়ে পঞ্চম উইকেটে গড়েন ৫৪ রানের জুটি। এই জুটিকেই বিপজ্জনক হয়ে ওঠার আগে থামান তাসকিন। প্রথম টেস্টের মতো এ টেস্টেও এখন পর্যন্ত তিনটি উইকেট নিয়ে তিনিই সফল বোলার।

এর আগে প্রথম সেশনের দ্বিতীয় ঘণ্টায় জোড়া উইকেট শিকার করেন তাসকিন আহমেদ। তার সঙ্গে যোগ দেন তাইজুলও। এ দুজনের আঘাতে দিনের প্রথম সেশনেই ৩টি উইকেট হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। যাতে লাঞ্চ বিরতি পর্যন্ত তাদের স্কোর দাঁড়ায় ৩৩৪/৪।

এক উইকেটে ২৯১ রান নিয়ে আজ দ্বিতীয় দিন শুরু করে শ্রীলঙ্কা। ক্রিজে ছিলেন ওশাদা ফার্নান্দো ও সেঞ্চুরিয়ান লাহিরু থিরিমান্নে। দিনের প্রথম এক ঘণ্টা বাংলাদেশি বোলারদের শাসন করেন তারা। তবে রান তোলার গতি বেশ কম ছিল। টানা দারুণ বোলিং করার ফল অবশেষে পান তাসকিন আহমেদ। তাসকিনের বলে উইকেটরক্ষকের তালুবন্দী হন থিরিমান্নে। ফেরার আগে ২৯৭ বলে ১৫টি চারের মারে তিনি করেন ১৪০ রান। ভাঙে ওশাদা ও থিরিমান্নের ১০৪ রানের জুটি।
 
তাসকিনের ওই ওভারেই ফিরতে পারতেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ। তার ব্যাট ঘষে বল জমেছিল উইকেটরক্ষক লিটনের গ্লোভসে। কিন্তু আউটের জন্য আবেদনই করেননি উইকেটরক্ষক! বুঝতে পারেননি বোলার ও আম্পায়ারের কেউই। পরে রিপ্লাইতে দেখা যায়, নিশ্চিত আউট ছিলেন ম্যাথিউজ। হতভাগা তাসকিন সামান্য ভুলের জন্য আরও একটি উইকেট হাতছাড়া করেন।

তবে ম্যাথিউসকে শিকার করতে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি তাসকিনকে। নিজের পরের ওভারেই আবার সেই লিটনের গ্লোভসেই ম্যাথিউজকে বন্দী করান এই পেসার। ১০ বলে ৫ রান করে মাঠ ছাড়েন শ্রীলঙ্কার অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

বেশিক্ষণ টেকেননি প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ধনাঞ্জয়া ডি সিলভাও। বাঁহাতি স্পিনার তাইজুলের শিকার হন তিনি। স্লিপে নাজমুল হোসাইন শান্তর তালুবন্দী হন ৯ বলে ২ রান করেই। যাতে ৩২৮ রানে চতুর্থ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা।